logo

সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির দুই শিক্ষার্থী কর্মশালায় অংশগ্রহণ

Published    2 weeks ago

Image

 

২০তম হিউম্যান রাইটস সামার স্কুলের কর্মশালায় অংশ নিলেন এসআইইউ’র দুই শিক্ষার্থী

 

 প্রতি বছরের ধারাবাহিকতায় এবারও এমপাওয়ারমেন্ট থ্রো ল' অফ দ্য কমন পিপল আয়োজিত হিউম্যান রাইটস সামার স্কুলে গেলেন সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির দুই শিক্ষার্থী তাফহিমা রহমান মৌ এবং রাবেল মিয়া। মানবাধিকার কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মিজানুর রহমানের শুরু করা এই সামার স্কুল ট্রেনিং আইনের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য একটি বহুল আকাঙ্খিত ও প্রতীক্ষিত একটি কোর্স।বাংলাদেশ,ভারত ও নেপালের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্য থেকে বাছাইকৃত সেরা ৪২ জনই এতে অংশ গ্রহন করার সুযোগ পায়।এবার তিন দেশের ২২টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪২ জন শিক্ষার্থীরা এতে অংশ নেন। উল্লেখ্য সিলেটের মধ্য থেকে একমাত্র সিলেট ইন্টারন্যাশনাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাই নিয়মিত এতে অংশগ্রহণ করে আসছে এবং সিলেট থেকে এবার তিন জনের মধ্য থেকে দুজনই এসআইইউ’র শিক্ষার্থী। উল্লেখ্য খুব কম সংখ্যক বিশ্ববিদ্যালয় থেকেই একাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণের সুযোগ পায়।

 

এবছর ২০ তম আসরের থিম ছিলো " হিউম্যান রাইটস এন্ড রেবেলিয়্যাস লইয়ারিং"। বিভাগীয় প্রধান হুমায়ুন কবির বলেন, বরাবরই আমাদের আইনের শিক্ষার্ত্রীরা সব কিছুতেই সাফল্যের ছাপ রেখে চলেছে। তিনি আরও বলেন, ডিবেট,মুট কোর্ট সহ যা কিছু আছে,সবকিছুতেই তাদের শিক্ষার্ত্রীরা কাজ করে যাচ্ছে এবং বিশ্ববিদ্যালয়কে উপস্থাপন করছে। এবার ২০তম আসরে ১২-১৫ জন রেসিডেন্ট ইন্সট্রাক্টর সেশন পরিচালনা করেন যাদের মধ্যে ছিলেন বাংলাদেশ,ইতালি, ইউএসএ ও নেপাল থেকে অভিজ্ঞ আইনের অধ্যাপক ও প্রতিনিধিবৃন্দ। এছাড়া ছিলেন ড. কামাল হোসেন,ড. সলিমুল্লাহ্ খান সহ অসংখ্য প্রথিতযশা ব্যক্তিত্ববর্গ। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী, বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্ণর মো. আতিউর রহমান। অন্যদিকে সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।